Sunday, April 14, 2024

সম্পাদকের বাণী

সময়ের প্রয়ােজনে মানুষকে বদলাতে হয়। সমাজ, সংসার এর মাঝেও পরিবর্তন আসে। পরিবর্তন আনতে হয় অনেক সময় কর্ম পদ্ধতির। সময়ের দাবীকে কোন ভাবেই অস্বীকার করার যাে নেই কারও পক্ষে। সংবাদপত্র শিল্প ও এই সময়ের দাবীর বাইরে নয়, একটা সময় সংবাদপত্র যে কারিগরি শৈলীতে ছাপা হতাে তা এখন অনেকখানিই পরিবর্তিত। রং-রূপ মেক-আপ-গেট আপ সবকিছুতেই আধুনিকতার উজ্জ্বল আভা ছড়ানাে। এরপর যদি ধরা যায় বিপনণ ব্যবস্থা সেখানেও বৈপ্লবিক পরিবর্তন। মনে আছে ছােট বেলাতে পিতার কর্মস্থল ময়মনসিংহ অথবা নানার বাড়ী বিভাগীয় শহর, শিক্ষানগরী রাজশাহীতে বেড়াতে গেলে পত্রিকা পাওয়া যেতাে একদিন পারে । ভাবুন তাে একবার আজ কি এটা কোনভাবেও সম্ভব, বর্তমানে এসে গেছে পত্রিকার অনলাইন সংস্কার, ওয়েব-সাইট, নিউজ পাের্টাল, ই-পেপারসহ আরাে কত কি ? সব কিছুই সময়ের দাবী। মানুষ এখন অনেকবেশী সচেতন, সে শুধু টাটকা খাবার খাইতেই আগ্রহী নয়, আগ্রহী তড়িৎ বা তৎ নগদ ঘটে যাওয়া সংবাদ জানতে। ফল শ্রুতিতে ব্যাঙ্গের ছাতার মতাে গজিয়ে উঠেছে একই নামে একাধিক বা শুধুই নাম সর্বস্ব নিউজ পাের্টাল। ডটকম, ডটনেট কেউই তাদের নামের থেকে বাদ পড়েনি। আর পড়বেই বা কেন এখানে তাে দাপ্তরিক দায়বদ্ধতা বা ডি.এফ.পির নিয়ন্ত্রণ নেই। ডি.এফ.পি'র কোন প্রকার অনুমােদন ব্যতিতই ডােমেইন হােস্টিং করে ঘরে বসেই একটা নিউজ বা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হয়ে পড়েছেন অনেকেই। ঢাকা শহর এ চলাচলকারী মটর সাইকেলগুলাের শতকরা নব্বই ভাগই কোন না কোন ডটকম অথবা ডটনেট স্টিকারে শােভিত, আসলে কাউকে বিষেদাগারে করার জন্য লেখা নয়, এটা একদিকে ভালাে, মানুষ সংবাদ সচেতন হয়েছে। আসলে ব্যবহার এ কোন আপত্তি নেই। আপত্তি হচ্ছে অপব্যাবহার এ, বহুদিন ধরে আমার “দৈনিক বাংলার বার্তার অনেক সহকর্মী মুখ গােমড়া করে বসেছিল কেন বাংলার বার্তার একটি অনলাইন সংস্করণ বা ওয়েব সাইট হচ্ছে না। আসলেই সময় এর দাবীতে মানতেই হবে। বিপত্তিটা আসলাে যখন ওয়েবসাইট তৈরীর ব্যাপারে মনস্থির করলাম দেখা গেল “বাংলার বার্তা" নামে ইতিমধ্যেই একাধিক ওয়েব সাইট বা নিউজ পাের্টাল ইথার এ ভেসে বেড়াচ্ছে, কেউ সৌদি থেকে তাে কেউ যুক্তরাজ্য থেকে, কেউ কুষ্টিয়া থেকে, তাে কেউ কুমিল্লা থেকে এ ওয়েব সাইটগুলাে চলাচ্ছে। আমরা তাদের সাথে বা পথে নই । দৈনিক বাংলার বার্তা সরকারী ডিক্লিয়ারেশন প্রাপ্ত একটি পত্রিকা। অবশেষে “দৈনিক বাংলার বার্তা” পরিবার তার ঠিকানা: www.thedailybanglabarta.com- এ তৈরি করলাম। সত্যিই সময়ের দাবীর কাছে আমরা কিছুটা পরাস্থ । আরও আগেই আমাদের অনলাইন সংস্করণ করা উচিত ছিলাে। যাই হােকে সেই দায়ভার একান্তই আমার । পাঠকদের ভালােবাসাতে সিক্ত হয়ে “দৈনিক বাংলার বার্তা” এগিয়ে যাবে এই কামনায় শেষ করলাম।

Chowdhury Nafiz Anowar