Monday, April 22, 2024
Homeবিশ্বআগুনে ঘি ঢালবেন না ইউক্রেন যুদ্ধ প্রসঙ্গে বেইজিং

আগুনে ঘি ঢালবেন না ইউক্রেন যুদ্ধ প্রসঙ্গে বেইজিং

বিশ্বের বেশির ভাগ দেশ ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের বিরোধিতা করলেও বিশ্বের শীর্ষ ধনী দেশ চীন ভিন্ন সুরে কথা বলছে। এ যেন বিশ্ব কূটনীতিতে মস্কো-বেইজিং ভাই-ভাই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

রাশিয়াকে আগ্রাসন বন্ধে সরাসরি আহ্বান না জানিয়ে উল্টো পশ্চিমা দেশগুলোকে সতর্ক করে বেইজিং বলেছে, আগুনে ঘি ঢালবেন না, তা হলে এমন পদক্ষেপের বিরোধিতা করবে চীন। খবর বিবিসি।

ইউক্রেন ইস্যুতে চীন বিশেষ কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে। এখন পর্যন্ত তারা রুশ আগ্রাসনের নিন্দা জানায়নি; আবার রাশিয়াকে অভিনন্দনও জানায়নি। বরং আলোচনা ও মধ্যস্থতার মাধ্যমে সংকট সমাধানের কূটনৈতিক সুরে কথা বলছে বেইজিং। এদিকে এমন পরিস্থিতির মধ্যে চীন ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে দুবার ফোনালাপ হয়েছে।

চীনের সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস জানিয়েছে, গত শনিবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনকে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেছেন, ‘আগুনে ঘি ঢালবে’ এমন পদক্ষেপের বিরোধিতা করবে বেইজিং।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইউরোপে নিজেকে যুদ্ধের সমর্থনকারী হিসেবে দেখাতে চায় না বেইজিং; অন্যদিকে মস্কোর সঙ্গে সামরিক ও কৌশলগত মিত্রতাও বাড়াতে চায় তারা। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই যুক্তরাষ্ট্র, ন্যাটো ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতি রাশিয়ার সঙ্গে ‘ন্যায্য আলোচনায়’ বসতে এবং ন্যাটোর সম্প্রসারণ নিয়ে মস্কোর নিরাপত্তা উদ্বেগ স্বীকার করে নিতে আহ্বান জানিয়েছেন, বলা হয়েছে গ্লোবাল টাইমসের প্রতিবেদনে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি মার্কিন নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোর প্রতি ইউক্রেনের আকাশকে ‘নো ফ্লাই জোন’ ঘোষণার অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো মনে করে তা করলে রাশিয়া আরও আগ্রাসী হয়ে ইউরোপে আক্রমণ করে বসতে পারে। এতে ক্ষুব্ধ জেলেনস্কি ন্যাটোর কঠোর সমালোচনা করেন। এ নিয়ে গত শনিবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেন, পশ্চিমারা যদি এমন পদক্ষেপ নেয় তা হলে আমরা ধরে নেব তারা ইউক্রেন যুদ্ধে অংশ নিয়েছে। এতে পাল্টা পদক্ষেপ নেবে মস্কো। এরপরই চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীও পুতিনের সুরে সুর মিলিয়ে বললেন, আগুনে ঘি ঢালবে- এমন পদক্ষেপ নিলে বেইজিং তা বিরোধিতা করবে।

প্রতিরক্ষা ব্যয় বাড়াচ্ছে চীন

প্রতিরক্ষা খাতে বার্ষিক বরাদ্দ ৭ দশমিক ১ শতাংশ বাড়াবে চীন। গত শনিবার দেশটির খসড়া বাজেটে এ প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। গত বছর চীনের প্রতিরক্ষা বাজেট ছিল ২০৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এ বছর দেশটি প্রতিরক্ষা খাতের জন্য ২৩০ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করেছে। চীনের সংবাদপত্র চায়না ডেইলি জানিয়েছে, চীনের পার্লামেন্ট ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেসে (এনপিসি) খসড়া এ বাজেট উত্থাপন করেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং।

খসড়া বাজেটে ২০২২ সালের জন্য চীনের প্রতিরক্ষা খাতে ১ লাখ ৪৫ হাজার কোটি ইউয়ান বা ২৩০ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করা হয়েছে।

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular