Sunday, May 19, 2024
Homeবিশ্বইমরানই ‘আসল’ নায়ক

ইমরানই ‘আসল’ নায়ক

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানোর পথে থাকা ইমরান খানের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন দেশটির অনেক তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রী। দেশটির পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রীর ওপর অনাস্থা প্রস্তাব উঠেছে, যার ওপর ভোটাভুটি হতে পারে আগামী রবিবারই। এই প্রস্তাব ঘিরে বিরোধী শিবির যেভাবে ভারী হয়েছে, তাতে ইমরানের আর প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে এসেছে। এর জন্য পশ্চিমা শক্তি, বিশেষত যুক্তরাষ্ট্রের দিকে ইঙ্গিত করে বক্তব্য দিচ্ছেন ইমরান খান।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বিষয়ে পাকিস্তানের অবস্থান নিয়ে অসন্তোষ ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। এর মধ্যে হঠাৎ করে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন অনেকের কাছেই চমক হয়ে আসে। এর মধ্যে ইমরানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতৃত্বাধীন জোট সরকার থেকে বেরিয়ে বিরোধী শিবিরে গেছে কয়েকটি দল। এমনকি নিজের দলের আইনপ্রণেতারাও ইমরান খানের হাত ছাড়তে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এই পরিস্থিতির জন্য বিদেশি ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে ইমরান খান বলছেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার ইউক্রেনে হামলা শুরুর দিনে তিনি কেন মস্কো সফরে গিয়েছিলেন, সে প্রশ্ন তুলে তাঁকে সরানোর ষড়যন্ত্র করছে প্রভাবশালী একটি দেশ। পাকিস্তানের স্বাধীন পররাষ্ট্রনীতি প্রতিষ্ঠা করতে গিয়েই তিনি এই বিপদে পড়েছেন।

এই অবস্থায় ইমরান খানের ওপর আনা অনাস্থা প্রস্তাবের বিরোধিতা করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হয়েছেন পাকিস্তানি মডেল ও অভিনেত্রী সায়রা ইউসুফ। ইনস্টাগ্রামে তিনি লিখেছেন, ‘পাকিস্তানের জনগণই আপনাকে নির্বাচিত করেছিলেন এবং আমি সব সময় আপনাকেই বেছে নেব।’

পাকিস্তানি টেলিভিশন ধারাবাহিক ‘প্যাহলি সে মোহাব্বাত’-এর অভিনেত্রী মায়া আলী মনে করেন, পাকিস্তানের জন্য ভালো কিছু করতে চান, রাজনীতিতে এমন একজনই আছেন। আর তিনি হলেন ইমরান খান। ইনস্টাগ্রামে মায়া আলী লিখেছেন, ‘কিছু নতুন করে গড়ে তুলতে সময় প্রয়োজন। তাঁকে (ইমরান) পাকিস্তানের প্রয়োজন।’

ইমরান খান পাকিস্তানের জন্য সব সময় ‘সত্যিকারের একজন নেতা’ হিসেবে থাকবেন বলে মনে করেন পাকিস্তানি ছবি ‘ইশরাত মেড ইন চায়না’-এর অভিনেতা আলী কাজমি। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘আমরা যদি তাঁকে হারাই, তাহলে এটা দেশের ভবিষ্যতের জন্য দুঃখজনক হবে।’

ইমরানের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় ইউটিউবার শাহভির জাফরি ও জাইদ আলী। টুইটারে শাহভির জাফরি লিখেছেন, ‘ইমরান খানের মতো চ্যাম্পিয়ন হন। পেছন থেকে ছুরিকাঘাতের শিকার ও আহত হওয়ার পরও তিনি যুদ্ধে চ্যাম্পিয়নের মতো লড়ছেন।’ অপর দিকে ইমরানকে পাকিস্তানের ‘শেষ আশা’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন জায়িদ আলী।

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular