স্বামী-স্ত্রীর চক্রের ফাঁদে ৮শ মানুষ, হাতিয়েছেন লাখ লাখ টাকা

0
98

এসএসসি পাশেই আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি, এমন প্রলোভন দেখিয়ে সাতশ থেকে আটশ চাকরি প্রার্থীর লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় চক্রের মূলহোতা স্বামী-স্ত্রীসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। রাজধানীর উত্তরখান থানার আটিপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করে র‌্যাব-১।

আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তাদের আটকের বিষয়টি জানিয়েছেন র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন।

তারা হলেন- কথিত সিনথিয়া সিকিউরিটি সার্ভিসেস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামসুন্নাহার ওরফে মায়া (৩৩) ও তার স্বামী মো. জুয়েল ভূঁইয়া (২৬), কামরুজ্জামান ওরফে ডেনিস (২৪), ফারহানা ইয়াছমিন ওরফে সুবর্ণা আক্তার (২৩), মেহেদী হাসান (২১), আল মামুন ওরফে মাসুদ (২১) ও তাজবির হাসান ওরফে লোহান (১৯)।

আটকের সময় তাদের কাছ থেকে পাঁচটি ভুয়া নিয়োগপত্র, ৮০টি জীবনবৃত্তান্ত, ভিজিটিং কার্ড, টাকা আদায়ের রশিদ, ১০১টি ভর্তির ফরম ও অঙ্গীকারনামা, ১৫টি আইডি কার্ড, তিনটি রেজিস্টার, আটটি মোবাইল ফোন ও নগদ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, চক্রটি চটকদার বিজ্ঞাপনে চাকরি প্রার্থীদের আকৃষ্ট করতো। প্রার্থীরা আবেদন করলে ট্রেনিংসহ বিভিন্ন খাতের নামে তাদের কাছ থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকা জমা নিতো তারা। এরপর চাকরি না দিয়ে তাদের বলা হতো তাদের মতো আরও চাকরিপ্রার্থী সংগ্রহ করতে। চাকরিপ্রার্থী সংগ্রহ করতে পারলে কমিশন হিসেবে ১১শ টাকা করে দেওয়া হবে। মাসে অন্তত ১৪ জনকে সংগ্রহের টার্গেট দেওয়া হতো।

হাতিয়ে নেওয়া অর্থ কোন খাতে ব্যয় করা হতো- জানতে চাইলে র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক জানান, এখন পর্যন্ত তারা অর্থপাচারের কোনো তথ্য পাননি। তবে এ অর্থ দিয়ে তারা বিলাসবহুল জীবনযাপন করতেন বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে র‌্যাব। এ ছাড়া চক্রটি তাদের কোম্পানির প্রচারণা ও লোক নিয়োগের জন্য ফেসবুকে বুস্টিংয়ের পেছনেও অনেক অর্থ ব্যয় করতো বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।

এসময় আটক হওয়াদের বিরুদ্ধে কোন আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে- জানতে চাইলে লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, এখন পর্যন্ত ১৭ জন ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা বলেছে র‌্যাব। তারাই এ মামলার বাদী হবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here