পাকিস্তানে অলআউট ইমরান সরকার

0
73

পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অনাস্থা ভোটে পদচ্যুত হয়েছেন। সেই সাথে কয়েকদিনের নানা নাটকীয়তা শেষে ক্যাপ্টেন ইমরানের সরকার খেলোয়ারি জীবনের মত রাজনীতিতেও সরকারের মেয়াদ শেষ হবার আগেই অলআউট হলেন।

শনিবার মধ্যরাতে দেশটির পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদের অধিবেশনে অনাস্থা প্রস্তাবের ওপর এ ভোটাভুটিতে ইমরানের বিরুদ্ধে ভোট পড়েছে ১৭৪টি। জাতীয় পরিষদে ৩৪২ আসনের মধ্যে প্রস্তাবটি পাসের জন্য ১৭২টি ভোট দরকার ছিল।

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টের আদেশ মোতাবেক দেশটির জাতীয় পরিষদের অধিবেশনে সকাল ১০টায় বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাবের উপর ভোটাভুটির নির্দেশনা ছিলো। গতকাল শনিবার দিনভর চলে নাটকীয়তা। তিন দফা অধিবেশন মুলতবি করা হয়। ভোটাভুটি শুরুর আগমুহুর্তে পদত্যাগের ঘোষণা দেন স্পিকার আসাদ কায়সার। তিনি বলেন, মন্ত্রিসভা থেকে গুরুত্বপূর্ণ নথি পেয়েছেন তিনি; যা বিরোধী দলের নেতা এবং পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতিকে দেখার জন্য তিনি আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

পরে মধ্যরাতের ওই অধিবেশনের কার্যসূচিতে ৪ নম্বরে রাখা হয় প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাবের ওপর ভোটাভুটি। অধিবেশনে বিরোধী দলগুলোর সব আইনপ্রণেতা অংশ নেন। শুরুতে সরকারি দলের আইনপ্রণেতাদের মধ্যে কয়েকজনকে অধিবেশনে দেখা যায়।

পরবর্তি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে বিরোধী দলীয় জোটের প্রার্থি শাহবাজ শরিফের নাম আলোচিত হচ্ছে। ইমরানের প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে অপসারনের পর অধিবেশনে প্রথমেই বক্তব্য রাখেন শাহবাজ। তিনি বলেন, ‘ আমরা তাঁদের ভুলে যেতে ও সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। আমরা প্রতিশোধ নেব না ও অবিচার করব না। আমরা অকারণে মানুষকে কারাগারে পাঠাব না। আইন ও বিচার প্রক্রিয়া তার নিজস্ব গতিতে চলবে।’ পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) নেতা বিলাওয়াল ভুট্টো তার বক্তব্যে ইমরানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেওয়ায় পরিষদের সদস্যদের অভিনন্দন জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here