শিমুলিয়ায় ঘরমুখো মানুষের সীমাহীন দুর্ভোগ

0
81

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের যাতায়াতের অন্যতম নৌপথ মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ফেরিঘাট। ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে আজ শুক্রবার ভোর থেকে এই ঘাটে যাত্রীদের প্রচণ্ড চাপ তৈরি হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, যাত্রী ও যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় ঘাট এলাকায় পা ফেলার জায়গা নেই। সকাল থেকে ফেরিতে শুধু মোটরসাইকেল পারাপার করা হচ্ছে।

জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার সেহরির পর থেকে বিকেল পর্যন্ত ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ কিছুটা থাকলেও সন্ধ্যার পর থেকে চাপ বেড়ে যায়। আজ সকালে পুরো ঘাট যাত্রী, যানবাহন ও মোটরসাইকেলের চাপে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাট সূত্র জানায়, ঘাটের অবস্থা খুব খারাপ। যাত্রী ও যানবাহনের প্রচণ্ড চাপ। ঘাটের পার্কিংয়ের মাঠ গাড়িতে সম্পূর্ণ ভরা, সংযোগ সড়কেও একই অবস্থা। সড়কে গাড়ির সারি। সব মিলিয়ে আট শতাধিক গাড়ি এ পথে পদ্মা পারাপারের অপেক্ষায় আছে। সেইসঙ্গে তিন থেকে চার হাজার মোটরসাইকেল আছে। সকাল থেকে শুধু মোটরসাইকেল পারাপার করা হচ্ছে। যানবাহন পারাপারের জন্য এ ঘাটে ছোট, বড় ও মাঝারি আকারের ১০টি ফেরি আছে।

সকাল ১০টার দিকে দেখা গেছে, যানবাহন থেকে অনেক যাত্রীরা নেমে পায়ে হেঁটে ঘাটের দিকে যাচ্ছেন। সড়কটির প্রায় এক কিলোমিটারজুড়ে যানবাহনের সারি। ঘাটে প্রবেশ করতেই চোখে পড়ে যাত্রী ও যানবাহনের বিশাল জটলা।

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপজেলার এক বাসিন্দা বেলা সোয়া ১১টার দিকে জানান, পরিবারের সবাইকে নিয়ে ঈদ করতে গ্রামে যাচ্ছেন তিনি। প্রায় ১২ ঘণ্টা ধরে পদ্মা পাড়ি দেওয়ার অপেক্ষায় আছেন। গরমে খুব ভোগান্তিতে পড়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here